একাদশ শ্রেণী ২০২০ এ ভর্তির গুরুত্বপূর্ণ সকল তথ্যাবলী

View: 1,106

একাদশ শ্রেণী ২০২০ এ ভর্তির গুরুত্বপূর্ণ সকল তথ্যাবলী

22 Jul, 2020    0


কলেজ ভর্তি ২০২০-২১। একাদশ শ্রেণী ভর্তি বিজ্ঞপ্তি 2020 এর আবেদন আগামী ৯ আগস্ট ২০২০ থেকে শুধু মাত্র অনলাইনে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি আবেদন শুরু হবে । ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবে । একাদশ শ্রেণী কলেজ ভর্তির আবেদন সংক্রান্ত ওয়েবসাইটের ঠিকানা www.xiclassadmission.gov.bd এই ঠিকানায় কলেজ ভর্তি ২০২০ বিষয়ক সকল তথ্য পাওয়া যাবে । একাদশ শ্রেণী ভর্তি বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হল ।

একাদশ শ্রেণী কলেজ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০

আগামী ৯ আগস্ট থেকে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তির কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভর্তি কার্যক্রম চলবে রোববার অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক (ঢাকা শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বিগত বছরের ন্যায় এবারও এসএসসি রেজাল্টের উপর ভিত্তি করে প্রার্থী বাছাই করা হবে । একজন শিক্ষার্থী  সর্বনিম্ন ০৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন । তাছাড়া সকল যোগ্যতার মাপকাঠিতে যে যোগ্য তাকেই ভর্তির জন্য বাছাই করা হবে ।

আবেদনের যোগ্যতা

২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে । তাছাড়া  ২০১৭, ২০১৮ ও ২০১৯ সালের বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এর শিক্ষার্থীরাও একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন । তবে তাদের বয়সসীমা  ২২ বছর।

অনলাইনে ভর্তি

  • শিক্ষা বাের্ড কর্তৃক অনুমােদিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য অনলাইনে অথবা টেলিটক মােবাইল এস.এম.এস, এর মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদনের জন্য ওয়েবসাইট এর ঠিকানা: www.xiclassadmission.gov.bd

 

২য় পর্যায়ে কলেজ ভর্তি আবেদন

যেসকল ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ইতিপূর্বে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির জন্য নির্বাচিত  হয়নি একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে ২য় পর্যায়ে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন ।যাদের পূর্বে আবেদন ফি দেওয়া আছে তাদের নতুন করে কোন প্রকার ফি প্রদান করতে হবে না এবং তারা তাদের আবেদন আপডেট করেত পারবেন । যেমন : নতুন কলেজ সংযুক্ত করা বা বিয়োজন করা ।

আবেদন ফি সংক্রান্ত তথ্যাবলী

অনলাইনে আবেদনের ক্ষেত্রে ১৫০/- (একশত পঞ্চাশ) টাকা আবেদন ফি জমা সাপেক্ষে সর্বনিম্ন ৫(পাঁচ)টি এবং সর্বোচ্চ ১০(দশ) টি কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানের জন্য পছন্দক্রমের ভিত্তিতে আবেদন করতে পারবে। এস.এম.এস, এর মাধ্যমে প্রতি কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানের জন্য ১২০/- (একশত বিশ) টাকা আবেদন ফি প্রদান সাপেক্ষে একাধিক কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানে পর পর পছন্দক্রমের ভিত্তিতে আবেদন করতে পারবে। অনলাইন এবং এস.এম.এস. উভয় পদ্ধতিতে সর্বোচ্চ ১০(দশ) টি কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবে। একজন শিক্ষার্থী যতগুলাে কলেজে আবেদন করবে তার মধ্য থেকে শিক্ষার্থীর মেধা, কোটা (প্রযােজ্য ক্ষেত্রে) ও পছন্দক্রমের ভিত্তিতে একটি মাত্র কলেজে তার অবস্থান নির্ধারণ করা হবে।

শাখা নির্বাচন

  • বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণরা শিক্ষার্থীরা যেকোনো বিভাগে ভর্তি হতে পারবে।
  • মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণরা শিক্ষার্থীরা  মানবিক বিভাগের পাশাপাশি ব্যবসায় শিক্ষা শাখায়ও ভর্তি হবে পারবে
  • ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীরা ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক বিভাগে ভর্তি হতে পারবে।

ভর্তি ফি সংক্রান্ত নীতিমালা

  • সেশন চার্জসহ ভর্তি ফি সর্বসাকুল্যে মফস্বল/পৌর (উপজেলা) এলাকায় ১,০০০/- (এক হাজার), পৌর (জেলা সদর) এলাকায় ২,০০০/- (দুই হাজার), ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য মেট্রোপলিটান এলাকায় ৩০০০/- (তিন হাজার) টাকার বেশি হবে না।
  •  ঢাকা মেট্রোপলিটান এলাকায় অবস্থিত এম.পি.ও.ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে ৫,০০০/(পাঁচ হাজার) টাকার অতিরিক্ত অর্থ আদায় করতে পারবে না।
  • ঢাকা মেট্রোপলিটান এলাকায় অবস্থিত আংশিক এম.পি.ও.ভুক্ত বা এম.পি.ও.বহির্ভুত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন এবং এম.পি.ও. বহির্ভূত শিক্ষকদের বেতন-ভাতা প্রদানের জন্য শিক্ষার্থী ভর্তির সময় ভর্তি ফি, সেশন চার্জ ও উন্নয়ন ফিসহ বাংলা মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৯,০০০/- (নয় হাজার) টাকা। এবং ইংরেজি ভার্সনে সর্বোচ্চ ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা গ্রহণ করতে পারবে। উন্নয়ন খাতে কোন প্রতিষ্ঠান ৩,০০০/(তিন হাজার) টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না।
  • সরকারি কলেজসমূহ সরকারি পরিপত্র অনুযায়ী প্রয়ােজনীয় ফি সংগ্রহ করবে।
  • দরিদ্র, মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ভর্তিতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ উল্লিখিত ফি যতদূর সম্ভব মওকুফের প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন

  • সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বাের্ডের পূর্বানুমতি ছাড়া একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত কোন ছাত্র/ছাত্রীর ছাড়পত্র ইস্যু করা যাবে না। কিংবা বাের্ডের পূর্বানুমতি ছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ইস্যুকৃত ছাড়পত্রের বরাতে ভর্তি করা যাবে না।
  • শুধুমাত্র সরকারি/ আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের চাকুরিজীবী পিতা বা মাতার বদলিজনিত কারণে কোন ছাত্র/ছাত্রীর ছাড়পত্র ইস্যু করতে বা ভর্তি করতে বাের্ডের পূর্বানুমতি নেয়ার প্রয়ােজন হবে না। এরূপ ক্ষেত্রে বদলিকৃত কর্মকর্তা/কর্মচারির বদলির আদেশপত্র প্রদর্শন করে প্রতিষ্ঠান হতে ছাড়পত্র নেয়া যাবে এবং নতুন কর্মস্থলে যােগদানপত্র দেখিয়ে সংশ্লিষ্ট চাকুরিজীবীর সন্তানকে বদলিকৃত কর্মস্থলে উপযুক্ত কোন প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করা যাবে। এক্ষেত্রে কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষকে এ ধরনের ভর্তিকৃত ছাত্র/ছাত্রী ভর্তির ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন ফিসহ প্রয়ােজনীয় কাগজ-পত্র সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বাের্ডে জমা দিতে হবে।
  • কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কোন অবস্থাতেই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান হতে এস.এস.সি. বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কোন শিক্ষার্থীর মূল একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট উক্ত শিক্ষার্থী বা তার অভিভাবক ব্যতীত অন্য কোন ব্যক্তি বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হস্তান্তর করা যাবে না বা অন্য কোন অজুহাতে কোন শিক্ষার্থীর একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট আটক রাখা যাবে না।

Comments